মেসি দায়ী কুতিনহোর বার্সা–ব্যর্থতায়?

কয়েক দিন আগে বার্সেলোনা থেকে ধারে বায়ার্ন মিউনিখে যোগ দিয়েছেন ব্রাজিল তারকা ফিলিপ কুতিনহো। লিভারপুল থেকে যে প্রত্যাশায় কুতিনহোকে দলে এনেছিল বার্সেলোনা, সে প্রত্যাশার খুব সামান্যই পূরণ করতে পেরেছেন তিনি। ফলে বার্সাতেও আর জায়গা হয়নি এই ব্রাজিল তারকার। তবে কুতিনহোর এই ব্যর্থতার পেছনে কুতিনহো নন, লিওনেল মেসি দায়ী, বলেছেন সাবেক ব্রাজিল ও বার্সেলোনা তারকা রিভালদো।

বার্সায় যত দিন ছিলেন, নিজেকে হারিয়ে খুঁজেছেন। শেষ দিকে কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দের পরিকল্পনায় একদম অপাঙ্‌ক্তেয় হয়ে পড়েছিলেন ফিলিপ কুতিনহো। ফলে যা হওয়ার তা–ই হয়েছে, আপাতত ধার চুক্তির নাম করে বার্সা থেকে বায়ার্ন মিউনিখে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কুতিনহোকে। তবে কুতিনহো যে বার্সায় আলো ছড়াতে পারলেন না, এতে কুতিনহোর কোনো দোষ দেখছেন না ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী সাবেক তারকা, ও এককালে বার্সেলোনায় খেলা মিডফিল্ডার রিভালদো। কুতিনহোর ভালো না খেলার জন্য তাঁর চোখে দায়ী লিওনেল মেসি।

কুতিনহোর ফুটবলীয় সামর্থ্য নিয়ে রিভালদোর বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই। বার্সায় কুতিনহো সফল হবেন, এমনটাই ভেবে রেখেছিলেন সাবেক এই ব্রাজিল তারকা, ‘আমি সব সময় বিশ্বাস করি বার্সেলোনায় খেলার মতো যোগ্যতা কুতিনহোর আছে। বার্সায় সফল হওয়ার মতো সামর্থ্য ওর আছে। কিন্তু সেটা হলো না, বার্সার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে বেশ সময় লাগছিল ওর। ফলে কুতিনহোকে বায়ার্ন মিউনিখে পাঠানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলল বার্সা।’

ম্যাচের পর ম্যাচ না খেলে বেঞ্চে বসে থাকলে খেলোয়াড়ের আত্মবিশ্বাসে যে কী নেতিবাচক প্রভাব পড়ে, সেটা জানেন রিভালদো। আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার জন্য অনেকে তাই ক্লাব বদল করতেও দ্বিধাবোধ করেন না। বার্সেলোনায় জায়গা না পেয়ে দল বদল করে আর্সেনালে আসার পর যেমন সফল হয়েছিলেন আলেক্সিস সানচেজ। কিংবা কুতিনহো নিজেই যেভাবে ইন্টার মিলান ছেড়ে লিভারপুলে এসে সফল হয়েছিলেন। আত্মবিশ্বাস ও উদ্যম ফিরে পাওয়ার জন্য দল বদল করায় কুতিনহোর কোনো দোষ দেখছেন না রিভালদো, ‘ও যে বার্সার মূল একাদশে নিজের জায়গা করে নিতে পারল না, এ নিয়ে আমি একটু হতাশ আসলে। হয়তো ও বার্সেলোনায় আর সুখী ছিল না, হয়তো বার্সায় খেলার ব্যাপারে আর আগের মতো সেই আত্মবিশ্বাসটা পাচ্ছিল না ও। তাই বার্সা ছেড়ে আরেকটা বড় ক্লাবে নাম লিখিয়েছে। আশা করছে যাতে লিভারপুলের মতো সেই দুর্দান্ত ফর্ম বায়ার্নে ফিরে পেতে পারে।’

কিন্তু কুতিনহোর মতো একটা দুর্দান্ত খেলোয়াড় কেন বার্সেলোনায় জায়গা করে নিতে পারলেন না নিজের? রিভালদোর মতে এর পেছনে রয়েছে মেসির হাত, ‘আসলে একটা দলে জায়গা পাওয়া খুব কঠিন, যখন সেই দলে লিওনেল মেসির মতো একজন খেলোয়াড় থাকে, যে নিয়মিত সকল দায়িত্ব নেয়। সাফল্যের সব কৃতিত্ব নিজের করে নেয়। বিশ্বে খুব কম খেলোয়াড়ই আছে যারা এই ধরনের পরিস্থিতিতে থেকেও ভালোভাবে খেলতে পারে। অত দূর পর্যন্ত যাওয়ার ধৈর্য হয়তো কুতিনহোর ছিল না। আর্জেন্টিনার ওই তারকাই বার্সেলোনার মূল খেলোয়াড় এখনো, দলের নেতা, হয়তো এভাবেই আরও তিন-চার বছর খেলে যাবে সে। তাই এই সময়ে অন্য খেলোয়াড়দের নিজেকে পুরোপুরিভাবে মেলে ধরতে পারাটা একটু সমস্যাই।’

Leave a Response