রেফারিকে ধাক্কা, ছয় মাস নিষিদ্ধ রোনালদোর সতীর্থ

489

সতীর্থ লাল কার্ড দেখেছেন, ব্যাপারটা ভালো লাগেনি মোনাকোর পর্তুগিজ উইঙ্গার গেলসন মার্টিনসের। মেজাজ হারিয়ে ধাক্কা দিয়ে বসলেন রেফারিকে….

শেষ কবে ইতিবাচক কোনো কারণে খবর হয়েছিলেন পর্তুগালের উইঙ্গার গেলসন মার্টিনস?

এ নিয়ে আলোচনা শুরু করার আগে একটু চিনিয়ে দেওয়া দরকার, কে এই গেলসন মার্টিনস। ২৪ বছর বয়সী এই পর্তুগিজ উইঙ্গারকে বেশি না, মাত্র দুই-তিন বছর আগেও ভাবা হতো ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর যোগ্য উত্তরসূরি। দুই উইংয়েই খেলতে পারেন সমান তালে। রোনালদোর সাবেক ক্লাব স্পোর্টিং লিসবনের হয়েই আলো ছড়িয়েছেন প্রথমে। এ কারণে জাতীয় দলের হয়ে গত চার বছরে রোনালদোর সঙ্গে একুশটা ম্যাচও খেলা হয়ে গেছে তাঁর। কিন্তু স্পোর্টিং ছাড়ার পর থেকেই একে একে নেতিবাচক খবরে জর্জরিত হয়েছেন এই উইঙ্গার। এবার আলোচনায় আসলেন রেফারিকে ধাক্কা মেরে। ফরাসি ক্লাব মোনাকোর হয়ে খেলা এই উইঙ্গার রেফারিকে ধাক্কা মেরে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন। ফলে এই মৌসুমে আর মাঠে নামা হবে না রোনালদোর এই সতীর্থের।

গেলসনকে নিয়ে নেতিবাচক সংবাদ কিন্তু এটাই প্রথম নয়। গত এক-দুই মৌসুম ধরেই মাঠের ভেতরের চেয়ে বাইরের কারণে খবর হচ্ছেন তিনি। স্পোর্টিং ছেড়ে নাম লিখিয়েছিলেন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে। স্পোর্টিংয়ের তখন বিরাট দুরবস্থা। খেলোয়াড়দের সঙ্গে ক্লাবের সম্পর্ক একদম তলানিতে ঠেকেছিল। অনেকেই ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করছিলেন। সে সুযোগে স্পোর্টিং থেকে একদম বিনা মূল্যে ক্লাব বদল করেন গেলসন মার্টিনস ও রুই প্যাত্রিসিওর মতো কিছু তারকা। প্যাত্রিসিও যোগ দেন ইংলিশ ক্লাব উলভসে, মার্টিনসের ঠিকানা হয় অ্যাটলেটিকোতে। পরে মার্টিনসের জন্য অ্যাটলেটিকোর কাছে টাকা চেয়ে ফিফার কাছে স্পোর্টিং নালিশ করলেও মার্টিনস বা অ্যাটলেটিকো, কেউই পাত্তা দেয়নি বিষয়টা।

অ্যাটলেটিকোতে একদমই নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি মার্টিনস। ফলে এক মৌসুম পরেই ধারে মোনাকোতে পাড়ি জমান তিনি। এই মৌসুম থেকে ফরাসি ক্লাবটায় পাকাপাকিভাবে আছেন এই পর্তুগিজ তারকা, আর খুব চেষ্টা করছেন নিজের সেই দুরন্ত ফর্ম ফিরে পাওয়ার। এর মধ্যেই এল এই দুঃসংবাদ।

সেদিন নিমের বিপক্ষে খেলছিল মোনাকো। প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়কে বাজে ট্যাকল করে লাল কার্ড দেখেন সাবেক চেলসি মিডফিল্ডার তিমুইয়ে বাকায়োকো। সেটা মানতে পারেননি মার্টিনস। রেফারির সঙ্গে তর্ক করার এক মুহূর্তে রেফারিকে ধাক্কা দিয়ে বসেন তিনি। ব্যস! মার্টিনসও দেখলেন লাল কার্ড। আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, লাল কার্ড দেখে শান্ত হবেন কি, উল্টো আরেকবার আরও জোরে ধাক্কা দিয়ে বসলেন রেফারিকে।

ফরাসি লিগ কর্তৃপক্ষ ব্যাপারটাকে সহজভাবে নেয়নি। নিয়মভঙ্গের অভিযোগে ছয় মাসের জন্য পর্তুগিজ উইঙ্গারকে নিষিদ্ধ করেছে তাঁরা। ফলে আগামী গ্রীষ্মে ইউরো খেলাটাও অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে গেল মার্টিনসের। রোনালদোর সঙ্গে হয়তো ইউরোতে খেলা হবে না এই উইঙ্গারের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here