সাতক্ষীরায় আহত অটোরিকশা চালক শাহীন মোড়লের ২য় দফায় সোমবার অস্ত্রপচার

আমিনুল ইসলাম: সবকিছু ভাল থাকলে এক সাপ্তাহের মধ্যে বাড়ীতে যেতে পারবে বলে, জানিয়েছেন, ঢামেক হাসপাতালের নিউরো সার্জারী বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডাঃ অসিত চদ্র সরকার। তিনি বলেন, বহু আলোচিত ঘটনার শিকার শাহীন কে, যে অবস্থায় গত ২৯ জুন ঢামেক হাসপাতালে আনা হয়েছিল, তখন তার অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। তার মাথার হাড় ভেঙ্গে ব্রেনে আঘাত করে। ঐ অবস্থায় তার একটি অপারেশন করা হয়। পরে আইসিইউতে রাখা হয়।

সেখানে নিবির পরিচর্যায় আস্তে আস্তে তার অবস্থার উন্নতি হয়। এখন তার অবস্থা অনেকটাই ভালো। সে এখন হাটাহাটি করে কথাবার্তা বলতে পারছে। সোমবার (২সেপ্টেম্বর) আরেক টি অপরেশন করা হবে । তার মাথার যে হাড়টি ভেঙ্গে গিয়েছিল, সেখানে আরটিশিয়াল আরেকটি হাড় স্থাপন করা হবে। সব কিছু ঠিক ঠাক হলে, আসা করছি শাহীন মোড়ল এক সাপ্তহের মধ্যে সে বাসায় যেতে পারবে। এ অপারেশনের সকল খরচ বহন করবে হাসপাতাল কর্তিপক্ষ।

আহত শাহীন মোড়ল বলেন, আমার জন্য সকলে দোয়া করবেন, আমি যেন, পরিপূর্ণ ভাবে সুস্থ হয়ে বাড়িতে যেতে পারি। শাহীন আরও বলেন, যারা আমার জন্য করেছেন, তাদের জন্য আমিও দোয়া করি। বিশেষ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষার্থী, চিকিৎসক সহ সকলের কাছে চীর কৃতজ্ঞ।

### উল্লেখ্য ঃ শুক্রবার (২৮ জুন) বিকেলে যাত্রীবেশে কয়েকজন ছিনতাইকারী সাতক্ষীরা জেলার পাটকেলঘাটা থানার ধানদিয়ায় যাওয়ার কথা বলে কিশোর শাহীনের অটোরিকশায় ওঠে। শাহীন তাদের নিয়ে ধানদিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়। এরপর ধানদিয়া গ্রামের পথে ঢুকে একটি পাটক্ষেতের পাশে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা শাহীনের মাথায় কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে অটোরিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে জ্ঞান ফিরে শাহীন কান্নাকাটি শুরু করলে স্থানীয়রা সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানায় খবর দেয়। সেখান থেকে তাকে খুলনার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে খুলনা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পরও অবস্থার কোনো উন্নতি না হওয়ায় (২৯ জুন) শনিবার তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়।

Leave a Response