মনমেলা ” নরসিংদীতে ” power of she ” এর সুরক্ষিত স্বাস্থে উজ্জ্বল তারুণ্য ক্যাম্পেইন

নিজস্ব প্রতিবেদক: পাওয়ার শী সম্পর্কে এর প্রধান সাবিনা সাবী বলেন ,মূলত নারী শক্তির কথা বলে পাওয়ার অব শি” । “পাওয়ার অব শি “নারী শক্তির কথা বলে, তবে অবশ্যই ইতিবাচক নারী শক্তি অর্থে।নারীর ভিতরকার শক্তি গুলোকে জাগ্রত করে।সমাজে নারীর অবস্থান এবং মর্যাদাকেই প্রতিষ্ঠা করার লড়াইটাকে চালিয়ে যেতেই কাজ করে যাচ্ছে “পাওয়ার অব শি”।

এর মধ্যেই আমরা নারীর জীবনের সাথে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করছি।নারীদের মধ্যে সচেতনতা তৈরির একটা চেষ্টা আমরা সব সময় করে আসছি। তিনি বলেন আমাদের সমাজে নারীর ক্ষমতায়নের কথা বলা হলেও নারীরা অনেক ক্ষেত্রে এখনো পিছিয়ে আছে।নারীর প্রতি সহিংসতার মাত্রা দেখলে আমাদের গা শিউরে উঠে।নারীরা আমাদের দেশে এখনো নিরাপদ নয় রাস্তাঘাট কর্মক্ষেত্র থেকে শুরু করে নিজ বাড়িতেও। সাবিনা সাবী জানান, নারী সবচেয়ে বেশী নির্যাতনের স্বীকার হয় নিজ গৃহে। তাছাড়া মাসিককালীন নারীর পরিচ্ছন্নতা, প্রতিটি স্কুল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, অফিস আদালতে নারীর জন্য আলাদা টয়লেট এবং যেখানে প্যাড ব্যাংক থাকা, পাবলিক ট্রান্সপোর্ট এ নিরাপদ যাতায়াত এর ব্যবস্থা, নারীর বিভিন্ন ধরণের স্বাস্থ্য ঝুকি থেকে রক্ষা করা এগুলো এখন সময়ের দাবী।

আর “পাওয়ার অব শি” এসব বিষয় নিয়েই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কাজ করছে। “পাওয়ার অব শি” র কর্ণধার বলেন, এখন সবার হাতের মুঠোয় প্রযুক্তি, বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে, এমন মানুষের সংখ্যা অগণিত। তাই সহজেই আমরা এর মাধ্যমে সকলের কাছে দ্রুত এই জরুরি বার্তা পৌছে দিয়ে সবাইকে সচেতন করার কাজটি করতে পারবো বলে আশা করি। এ লক্ষ্যে “পাওয়ার অব শি” টীম নিষ্ঠার সংগে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে।

পাওয়ার অব শি” র সামাজিক সচেতনতামূলক প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে শনিবার নরসিংদীতে ” power of she ” এর সুরক্ষিত স্বাস্থে উজ্জ্বল তারুণ্য ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সাবিনা সাবী বলেন, নারীকে সমাজে মর্যাদাপূর্ণ একটা অবস্থানে আনার ক্ষেত্রে কাজ করতে পারে সেজন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।”পাওয়ার অব শি” নারীবাদী মানসিকতায় বিশ্বাসী নয়, নারী পুরুষ সকলে মিলে সমাজ। তাই নারী কে প্রতিপক্ষ না ভেবে নারীকে তার যথাযোগ্য মর্যাদা দিবে তাই আমাদের চাওয়া। “পাওয়ার অব শি” মনে করে শুধু পুরুষ নয় কোন কোন ক্ষেত্রে নারীরাও নারীদের বিপক্ষে কাজ করে। একজন নারীকে অবশ্যই আর একজন নারীর প্রতি সাপোর্টিভ হতে হবে। সবশেষে প্রয়োজন আমাদের দৃষ্টিভংগির পরিবর্তন ।

আর এই পরিবর্তনের মাধ্যমেই সবাই মানবিক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যেতে পারবো। সাবিনা সাবী জানান দৃষ্টিভংগি পরিবর্তনের জন্য সমাজের মানুষকে সচেতন করার কাজটিই পাওয়ার অব শি করার চেষ্টা করছে মাত্র।

Leave a Response