টয়োটা-সুজুকি মূলধনি জোট: দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর নতুন মিশন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :জাপানের প্রধান দুই গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টয়োটা ও সুজুকি জোট বাধার ঘোষণা দিয়েছিলো আগেই। এবার তা আরও মজবুত হয়েছে।  বুধবার (২৮ আগস্ট) দুই প্রতিষ্ঠান এক যৌথ বিবৃতিতে এমনটা জানায়।

গাড়ি নির্মাণ শিল্পে দুই প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী একে অন্যের শেয়ার কেনার মাধ্যমে এবার মূলধনি জোট গড়েছে। এ জোট বাধতে সুজুকির ৯৬ বিলিয়ন ইয়েন মূল্যের শেয়ার কিনবে টয়োটা। আর টয়োটার ৪৮ বিলিয়ন ইয়েনের শেয়ার কিনবে সুজুকি।

দুই প্রতিষ্ঠানের জোট করার ঘোষণা প্রথম আসে ২০১৬ সালের অক্টোবরে। আর চলতি বছরের মার্চে দুই প্রতিষ্ঠান যৌথ উৎপাদনে সম্মত হয়। এতে দুই কোম্পানি একে অন্যের পণ্য বিক্রি করতে সাহায্য এবং প্রযুক্তি ব্যবহার করবে। এবার শেয়ার কেনার মাধ্যমে দুই প্রতিষ্ঠান একে অন্যের ব্যবসায় অতপ্রেতভাবে জড়িয়ে গেলো। বিজ্ঞাপন

যৌথ বিবৃতিতে তারা জানায়, অটোমোবাইল শিল্পের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে দুই প্রতিষ্ঠান মূলধনি জোট গড়েছে। দুই প্রতিষ্ঠান পারস্পরিক সম্পর্ক মজবুত করে এ শিল্পের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবে। দুই প্রতিষ্ঠান নিজ নিজ পারদর্শিতা কাজে লাগিয়ে একে অন্যকে সাহায্য করবে।

টয়োটা জাপানের সবচেয়ে বড় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে টয়োটার বড় বাজার রয়েছে। এ অঞ্চলের দেশ থাইল্যান্ডে তাদের ৩০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। তবে এই ব্র্যান্ডটি ভারতের মত উন্নয়নশীল দেশগুলোতে বাজার ধরতে সুজুকির সাহায্য নেবে। ভারতের বাজারে সুজুকির ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। তবে এর বাইরে বেশিরভাগ বাজারেই নেতৃত্বের স্থানে আছে টয়োটা। এদিকে সুজুকি টয়োটার স্ব-চালিত প্রযুক্তি ব্যবহারে আগ্রহী।

এই দুই প্রতিষ্ঠানের জোট  বাধার ফলে জাপানের গাড়ি শিল্পে ত্রিমুখী জোট শুরু হয়েছে। সুজুকি ছাড়াও আগে থেকেই মাজদা মোটরস ও সুবারু মোটরসে বিনিয়োগ রয়েছে টয়োটার। এছাড়া এর বাইরে নিশান মোটরস, মিতসুবিশি মোটরস এবং ফ্রান্সের কোম্পানি রেনাল্টের একটি জোট রয়েছে। বড় নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে হোন্ডা মোটরস অবশ্য কোনো জাপানি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জোটে নেই। তবে মার্কিন কোম্পানি জেনারেল মোটরের সঙ্গে তাদের জোট রয়েছে।

এর আগে ২০০৯ সাল জার্মানির প্রতিষ্ঠান ভক্সওয়াগনের সঙ্গে জোট গড়েছিলো সুজুকি। ভক্সওয়াগন সুজুকির ১৯ দশমিক ৯ শতাংশ শেয়ার কিনে নেয়। তবে এক বছর যৌথ ব্যবসা না চলতেই সুজুকি জানায়, ভক্সওয়াগন তাদের নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে। ফলে ২০১১ সালে দুই কোম্পানির জোট ভেঙে যায় এবং আদালতের এক নির্দেশে সুজুকি থেকে কেনা শেয়ার ভক্সওয়াগন ফের সুজুকির কাছে বিক্রি করে দেয়।

তবে এবার টয়োটা ও সুজুকির মুলধনী জোট করার আগে দুই প্রতিষ্ঠান দুই বছর ধরে প্রযুক্তিগত ও বাজারজাতকরণের ক্ষেত্রে জোট করেছে। ফলে দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ভালো বোঝাপড়া রয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Response